Mon. Feb 6th, 2023

    ………………………………

    ৩৬তম বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ নিতে সারদা এসেছিলেন ১১৭ জন নবীন পুলিশ কর্মকর্তা।  শুরু হয়েছিলো ২০১৮ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর, আর শেষ হলো এক বছর পরে ১৫ সেপ্টেম্বর                          প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে সমাপনী কুচকাওয়াজের মাধ্যমে। নবীন পুলিশ কর্মকর্তারা সফলভাবে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করে দেশের মানুষের জন্য কিছু করার শপথ নিয়েছেন।
    চ্যানেল আই অনলাইনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এই ব্যাচের সেরা প্যারেড কমান্ডার শারমিন আকতার চুমকি জানিয়েছেন               দীর্ঘ ১ বছরের অনুভূতি আর আগামীদিনের স্বপ্নের কথা।

    ###প্যারেড কমান্ডার শারমিন আকতার চুমকি: ৩৬তম বিসিএসের নারী প্যারেড কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালনের গৌরব অর্জন করেছেন শারমিন আকতার চুমকি। বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমির প্রথম নারী প্যারেড কমান্ডার ছিলেন এলিজা শারমিন, ২৫তম বিসিএসে প্যারেড কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি। এর দীর্ঘ ১৫ বছর পর আবার সেই জায়গা নিয়েছেন চুমকি।
    জয়পুরহাটেরে মেয়ে চুমকি লেখাপড়া করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগ থেকে।   সাহসী এ নারীকে বিসিএসের ভাইভা বোর্ডে বলা হয়েছিলো                          “এই মেয়ে তোমার-তো অনেক সাহস! তোমাকে পুলিশ হলেই বেশি মানাবে” এরপর থেকেই পুলিশ ক্যাডারের প্রতি এক অন্য-রকম ভালো;লাগা কাজ করতে থাকে তার।

    ……………………………………

    নারীদের পাশে থাকতে চান তিনি। বর্তমানে নারীরা সবচেয়ে অ-নিরাপদ উল্লেখ করে চুমকি বলেন: “আমি নারী সমাজের প্রতিনিধি হয়ে কাজ করতে চাই। কোনো অসহায় নারী এসে                           যেনো হাসিমুখে ফিরতে পারে, সে ব্যবস্থা করতে চাই। আমি বিশ্বাস করি একজন নির্যাতিত নারী একজন পুরুষ কর্মকর্তার কাছে যতটা না সহজে তার সমস্যার কথা বলতে পারবে, তার চেয়ে অনেক বেশি সহজে সমস্যা*গুলো বলতে পারবে আমার কাছ।।”
    অনেক সময় সঠিক তদন্তের অভাবে নারীরা কোর্টে  গিয়ে ন্যায়বিচার পান না উল্লেখ করে চুমকি বলেন: “আমি এমনভাবে কাজ করতে চাই, যাতে নারীর প্রতি সহিংসতা                            কমে এবং একইভাবে নারীরা ভিক;টিম হলে তারা যেনো ন্যায়;বিচার পায়।






     
    ……………………………………
     






    তথ্যসুত্রঃ চ্যানেল আই অনলাইন (১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯)