Wed. Feb 1st, 2023

    …………………………………

    ৩৬তম বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ নিতে রাজশাহীর সারদা এসেছিলেন ১১৭ জন নবীন পুলিশ কর্মকর্তা। শুরু হয়েছিলো ২০১৮ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর, আর শেষ হলো                   এক বছর পরে ১৫ সেপ্টেম্বর প্রধান;মন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে সমাপনী কুচকাওয়া*জের মাধ্যমে। নবীন পুলিশ কর্মকর্তারা সফলভাবে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করে                      দেশের মানুষের জন্য কিছু করার শপথ নিয়েছেন।
    চ্যানেল আই অনলাইনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এই ব্যাচের  বেস্ট অ্যাকাডেমিক অ্যাওয়ার্ড সাইফুল ইসলাম খান (অপু) ও                              বেস্ট ফিল্ড পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড মোঃ আবদুল্লাহ আল মামুন জানিয়েছেন দীর্ঘ ১ বছরের অনুভূতি                 আর আগামী*দিনের স্বপ্নের কথা।

    ###বেস্ট অ্যাকাডেমিক অ্যাওয়ার্ড সাইফুল ইসলাম খান (অপু): ৩৬তম বিসিএসের পুলিশ ব্যাচে বেস্ট অ্যাকাডেমিক অ্যাওয়ার্ডে                            ভূষিত হয়েছেন এ কর্মকর্তা। আর এজন্য ছিলো তার তীব্র প্রচেষ্টা ও আকাঙ্ক্ষা। স্বপ্ন দেখতেন প্রধানমন্ত্রীর হাত                     থেকে পুরস্কার নেয়ার। স্বপ্ন বাস্তবে রুপ নেয়াতে তিনি আবেগাপ্লু।।

    নবীন এ কর্মকর্তা স্নাতক ও স্নাত-কোত্তর সম্পন্ন করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগ থেকে। মেধাবী সাইফুল সেখানেও রেখেছেন                        তার সাফল্যের প্রমাণ। অনার্সে প্রথম শেণিতে প্রথম ও মাস্টার্সে দ্বিতীয় হওয়ার                    গৌরব অর্জন করেন।
    সাভারের ছেলে সাইফুল কাজ করতে চান মানুষের জন্য। পুলিশ সম্পর্কে মানুষের যে নেতিবাচক ধারণা তা বদলাতে চান আত্মবিশ্বাসী এ কর্মকর্তা। থানায় এসে বা পুলিশের কাছে                       প্রতিটি মানুষ যেনো সহায়তা পায়, সেদিকটায় সর্বোচ্চ দৃষ্টি থাকবে তার।
    সাইফুল বিশ্বাস করেন: পুলিশ সম্পর্কে মানুষের ধার;নার পরিবর্তন শুরু হয়েছে। পরিবর্তন হচ্ছে এবং হবে।

    …………………………………

    ###বেস্ট ফিল্ড পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড মোঃ আবদুল্লাহ আল মামুন: ট্রেনিং এর প্রথমদিন মাঠ-টাকে সমুদ্র মনে হলেও পরে                       সেই মাঠটাই বন্ধু হয়ে যায় তার। আর এজন্য মিলেছে পুরস্কারও। শুরুর দিকে এক লম্বা যাত্রা মনে হলেও                        সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই প্রশি;ক্ষণের সঙ্গে মানিয়ে নেন নিজেক।।

    কুমিল্লার ছেলে মামুন। চার ভাই-বোনের মধ্যে সবার ছোট। এজন্য আদরের ভাগটাও অন্যদের                   থেকে একটু বেশিই। পরিবারের এই ছোট ছেলে;টিই এখন আত্মীয়-স্বজন-সহ সবার ভরসার একমাত্র আশ্রয়-স্থল হয়ে উঠেছেন।
    লেখাপড়া করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগে। মামুন বিশ্বাস করেন পুলিশের চাকরিটা এমন একটা চাকরি যেখানে চাইলেই মানুষের জন্য কিছু করা যায়। মানুষকে সাহায্য করা যায়। পুলিশকে জনবান্ধব করতে চান                            শিক্ষানবীশ এ নবীন কর্মকর্তা। বিশ্বাস করেন উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও উর্ধ্বতন-দের তদা-রকিই পারে পুলিশ বাহিনী সম্পর্কে মানুষের নেতি;বাচক ধারণা বদলাতে।

    ……………………………………

    তথ্যসুত্রঃ চ্যানেল আই অনলাইন (১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯)